Enable JavaScript to ensure website accessibility

মহাপরিচালক, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাহিদুল ইসলাম খান, বিএসপি, এনডিসি, পিএসসি (BA-3507) ২০২০ সালের ৩০ এ জানুয়ারি বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোরের মহাপরিচালক হিসেবে যোগদান করেন। তিনি ১৯৬৮ সালের ১৪ আগস্ট ময়মনসিংহ জেলার একটি সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম খান একজন অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার।
জনাব নাহিদ ১৯৮৮ সালের ২৩ ডিসেম্বর ১৯ তম বিএমএ দীর্ঘমেয়াদী কোর্সে প্রশিক্ষণ শেষে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পদাতিক কোরে সফলতার সাথে কমিশন লাভ করেন এবং ২০১৩ সালের ২১ ডিসেম্বর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল পদে পদোন্নতি লাভ করেন।
জেনারেল নাহিদ একজন চৌকস সেনা কর্মকর্তা হিসেবে ৩২ বছরের বর্ণাঢ্য সামরিক জীবনে তিনি দেশে ও বিদেশে বিভিন্ন কমান্ড ও স্টাফ নিয়োগ লাভ করেন এবং সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড ও স্টাফ কলেজ ও ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের (২০১৭ সাল) একজন গ্র্যাজুয়েট। তিনি যুক্তরাষ্ট্র থেকে "PSO (Peace Support Operations) ইনস্ট্রাক্টর্স কোর্স" সম্পন্ন করেন এবং মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা বিষয়ে এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন।
বিএনসিসিতে যোগদানের পূর্বে ব্রিঃ জেনারেল নাহিদ ৩৩ পদাতিক ডিভিশনে কর্মরত ছিলেন। তিনি কুমিল্লা এরিয়ার স্টেশন কমান্ডার, ময়নামতি গলফ ক্লাব ও কান্ট্রি ক্লাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজির ট্রাস্ট সদস্য হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন।
তিনি ৩২ ইষ্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের কমান্ডিং অফিসার এবং কুয়েত সেনা সদর দপ্তর ও ডিভিশন সদর দপ্তরে ইনফ্যান্ট্রি সিকিউরিটি গার্ডের স্টাফ অফিসার দায়িত্ব পালন করেছেন। ২২ এ জানুয়ারি ২০০৭ তারিখ হতে ০৬ সেপ্টেম্বর ২০০৭ তারিখ পর্যন্ত ব্রিঃ জেনারেল নাহিদ বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব পিস সাপোর্ট অপারেটর এন্ড ট্রেনিং (BIPSOT) এর ইন্সট্রাক্টর-৭ ও ফ্যাকাল্টি মেম্বার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। জনাব নাহিদুল ইসলাম খান বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের উত্তর পশ্চিম রিজিয়নের জোন কমান্ডার ও পরিচালক (অপারেশনস) হিসেবে দক্ষতার পরিচয় দেন এবং বিজিবির পেশাগত উন্নয়নে গুরুদায়িত্ব পালন করেন। তিনি ডিজিএফআই, এনএসআই ছাড়াও প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্টের (পিজিআর) এর অপারেশনস অফিসার ও ডেপুটি কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি UNPROFOR এর অধীনে বসনিয়া ও হার্জেগোভিনায় জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশগ্রহণ করেন।
তিনি পার্বত্য চট্টগ্রামে বীরত্বপূর্ন অপারেশনের জন্য “Red Wound Stripe” ও Chief of Army Staff’s Commendation এর মতো নানা গোরবময় ও বীরত্বপূর্ন পদক অর্জন করেন। তিনি বিশিষ্ট সেবা পদক (BSP), জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে জাতিসংঘের সদস্যদের মিসাইল ও আর্টিলারী এটাক থেকে রক্ষা করে UNPROFOR Force Commander Commendation and UNPROFOR Bosnia and Herzegovina Commander’s Commendation অর্জন করেন।
ব্যক্তিজীবনে জেনারেল নাহিদ ও ফারহানা তানিয়া নাহিদ দম্পতি ২ পুত্র সন্তানের জনক। ভ্রমণপ্রিয় জেনারেল নাহিদ বর্নিল সামরিক জীবনে বিভিন্ন দেশে ভ্রমণ করেছেন।